রাষ্ট্রপুঞ্জের গাড়িতেই সেক্স! ভিডিয়ো ফাঁস হতেই তোলপাড় নেটদুনিয়া।

চলমান গাড়িতে সেক্স! তাও আবার রাষ্ট্রপুঞ্জের গাড়িতে! এরকমই একটি ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মাত্র কয়েক সেকেন্ডের একটি ভিডিয়ো। নেটপাড়ায় তোলপাড় ফেলা সেই ভিডিয়োর জেরে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। গাড়ির ভিতরে থাকা ওই ব্যক্তি যে রাষ্ট্রপুঞ্জের এক আধিকারিক, সে ব্যাপারে কোনও সন্দেহ নেই। তাই মুখ বাঁচাতে কালক্ষেপ না-করে, রাষ্ট্রপুঞ্জ তদন্তও শুরু করে দিয়েছে। অভিযুক্ত আধিকারিকের বিরুদ্ধে শা’স্তিমূলক পদক্ষেপের কথাও বলা হয়েছে। অপরাধ প্রমাণিত হলে রাষ্ট্রপুঞ্জে কর্মরত ওই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দ্য নিউ হিউম্যানিটেরিয়ান সূত্রে খবর, ওই ঘটনাটি ঘটেছে ইসরায়েলের একটি রাস্তায়। ইসরায়েলের তেল আভিভের ব্যস্ত রাস্তায় তোলা হয়েছে ভিডিওটি। রাস্তার পাশে একটি বাড়ির জানালা থেকে ভিডিওটি তোলা হয়েছে। ভিডিওটিতে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে গাড়ির পেছনের সিটে বসে রয়েছেন রাষ্ট্রপুঞ্জের এক আধিকারিক। তাঁর কোলের ওপরে লাল রঙের জামা পরে দুদিকে পা করে একটি মহিলা তাঁর দিকেই মুখ করেই বসে রয়েছে। না, শুধু বসে নেই, ভিডিওটি দেখলে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে, তাঁরা রীতিমতো সেক্স করছেন। গাড়ির কাঁচ নামানো থাকায় তাদের দুজনকেই স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে। গাড়িটির নম্বর প্লেট থেকে জানা গিয়েছে সেটি রাষ্ট্রপুঞ্জের ট্রুস সুপারভিশান সংস্থার।

অপরদিকে যৌন অসদাচরণ এবং শোষণের বি’রুদ্ধে রাষ্ট্রপুঞ্জের কঠোর নীতি রয়েছে। অর্থের বিনিময়ে সেক্স করাও নিষিদ্ধ। তবে, গাড়িতে থাকা ওই আধিকারিক এবং তাঁরা সঙ্গিনী নিজেদের সম্মতিতে শারীরিক মিলনে লিপ্ত হয়েছিলেন নাকি অর্থের বিনিময়ে সেক্স করেছেন, তাও এখনও পরিষ্কার নয়।

ভাইরাল সেক্স ভিডিয়ো প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপুঞ্জের মুখপাত্র স্টেফান দুজারিক এদিন বলেন, ভিডিয়োটি তেল আভিভের হা ইয়ারকন স্ট্রিটে তোলা হয়েছিল। এমন একটি ভিডিয়োর সঙ্গে নাম জড়িয়ে যাওয়ায় রাষ্ট্রপুঞ্জ হতবাক, গভীর ভাবে বিব্রতও । দুজারিক জানান, দু-দিন আগেই তদন্ত শুরু হয়েছে। ওই আধিকারিককে দ্রুত চিহ্নিত করা যাবে বলেই তিনি আশাপ্রকাশ করেন।

814