চিন, আমেরিকার দ্রব্যসামগ্রীর ওপর ২০০% শুল্ক বসানোর দাবি জানালেন সুজন চক্রবর্তীর

২২/০৬/২০২০,ওয়েবডেস্কঃআমেরিকা ও চিনের পণ্য অবাধে ঢুকছে ভারতে। কেন্দ্র সরকারের কাছে এই সমস্ত সামগ্রীর ওপর ২০০% শুল্ক আরোপ করার দাবি করলেন বাম পরিষদীয় দল নেতা এবং সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী । লাদাখে ভারত এবং চিনের পারস্পরিক সম্পর্ককে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে দেশ। চিনের আক্রমণে মারা গেছেন ভারতের জওয়ানরা । এর পরেই দেশজুড়ে চিন বিরোধী অবস্থান গ্রহণ করেছে বিজেপি। তবে ইতিপূর্বেও চিন বিরোধী মন্তব্য করলেও চিনের জিনিসের ওপর অতিরিক্ত করার আরোপ করার কথা কখনও বলেনি বিজেপি। ভারতীয় সৈন্যদের মৃত্যুর পর বিজেপি এ বিষয়ে বাইরে কথা বললেও মোদী অমিত শাহের নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র কিন্তু চিনা দ্রব্যের আমদানি কখনোই আটকায়নি।এমনি বল্লভভাই প্যাটেলের মূর্তীর জন্যেও চিনের দ্রব্য ব্যবহার করেছে বিজেপি।।

এই বিষয়গুলিকে সামনে নিয়েই এবার বিজেপিকে আক্রমণে নামলো বামপন্থীরা। সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন যে শুধু মুখের কথা বললে হবেনা ২০০% কর আরোপ করা হোক চিন এবং আমেরিকার পণ্য সামগ্রীর ওপর। বাম পরিষদীয় দলনেতা রবিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, “বল্লভভাই পটেলের মূর্তি তৈরি করেছে চিনা সংস্থা। বিজেপির হিম্মত আছে বয়কট করার?”

সুজন চক্রবর্তী আরও বলেন, “বাংলার বা ভারতের কেউ চিনে গিয়ে চিনের জিনিস কিনে আনছে না। জিনিসটা ভারতে আসছে বলে কিনছে। আসবে কি আসবে না সেটা নির্ভর করে দিল্লির সরকারের উপর। তারা চাইলেই বন্ধ করে দিতে পারে। ঝগড়া, তর্কের দরকার হয় না।”
সুজন চক্রবর্তী আরও বলেন, “চিন-আমেরিকার দ্রব্যে ভারতের বাজার উপচে পড়েছে। দেশের শিল্প ও কর্মসংস্থানের বারোটা বেজে গিয়েছে। আমরা চাই দেশের জিনিসের বিক্রিবাটা বাড়ুক। বিদেশের জিনিসের বিক্রি কমুক। চিন ও আমেরিকার দ্রব্যের উপরে ২০০ শতাংশ কাস্টমস ডিউটি বসিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব কেন্দ্রের সরকারের।” বিজেপির উদ্দেশে সিপিএম নেতার পরামর্শ, রাস্তায় বয়কট বয়কট করে না চিৎকার করে প্রধানমন্ত্রীকে বলুন। যাতে চিনা ও মার্কিন পণ্য আটক হয় এবং ২০০ শতাংশ কাস্টমস ডিউটি চাপে।”

বিজেপির সায়ন্তন বসু এবিষয়ে আবার বামেদের চিনের দালাল বলে আক্রমণ করলেও চিনা পণ্যের ওপর কর বসানোর দাবি নিয়ে মন্তব্য এড়িয়ে গেছেন।

291