আবার চলন্ত বাসে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটল। চলন্ত বাসে পঁচিশ বছরের বিবাহিতা মহিলাকে দুই সন্তানের উপস্থিতিতে ধর্ষণ করলো গাড়ির চালক। আশ্চর্যের বিষয় যে সে সময় বাসে ১২ জন যাত্রী সে সময় বাসে ছিল। তবু এই ঘটনাটি কি করে ঘটানো সম্ভব হল তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, লখনউ থেকে মথুরা যাওয়ার পথে এই ঘটনা ঘটে। এসি স্লিপার বাসটিতে করে স্বামীর সঙ্গে দেখা করতে নয়ডায় যাচ্ছিলেন বছর পঁচিশের ওই তরুণী। বাসটি চালাচ্ছিল রতন নামের এক চালক। ডেপুটি পুলিশ কমিশনার বিন্দ্রা শুক্লা জানান, “আমরা জানতে পেরেছি নয়ডা যাওয়ার পথে চলন্ত বাসে ওই মহিলা নির্যাতনের শিকার হন। তরুণী অভিযোগ করেছেন, বাসটির চালক যখন তাকে ধর্ষণ করে তখন অপর চালক স্টিয়ারিং ধরে ছিল। বাসের কন্ডাকটারও বিষয়টি জানত। বাসটিতে সেই সময় ১২-১৩ জন যাত্রী ছিল। এই ঘটনায় ইতিমধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি  ২ জনের খোঁজ চলছে।”

পুরো বিষয়টি মহিলা ফোন করে তাঁর স্বামীকে জানান। এরপর নয়ডার সেক্টর ৬২-তে সকালে বাসটি পৌঁছলে সেখানে নিজের এক বন্ধুকে নিয়ে হাজির হন তরুণীর স্বামী।তবে তার আগেই সেখান থেকে চম্পট দেয় প্রধান অভিযুক্ত। এই ঘটনায় ইতিমধ্যে অপর চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

37