ফের রাষ্ট্রপুঞ্জের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে ২ বছরের মেয়াদে নির্বাচিত হয়েছে ভারত। বুধবার ১৯২টি ভোটের মধ্যে ১৮৪টি ভোট ভারতের পক্ষে গিয়েছে।।২০২১-এর জানুয়ারি মাস থেকে এই মেয়াদ কার্যকর হবে। এ নিয়ে অষ্টমবার রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হল ভারত। এর আগেও ভারত আরও সাতবার নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হয়েছিল। ১৯৫০-৫১, ১৯৬৭-৬৮, ১৯৭২-৭৩, ১৯৭৭-৭৮, ১৯৮৪-৮৫, ১৯৯১-৯২। তারপর একুশ শতকে ভারত নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়েছিল ২০১১-‘১২ সালের জন্য।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইটে বলেন, “রাষ্ট্রপুঞ্জের সদস্যপদের জন্য বিশ্বের এই সমর্থনের জন্য গভীরভাবে কৃতজ্ঞ আমরা। নিরাপত্তা পরিষদে অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে ভারত বিশ্বব্যাপী শান্তি, সুরক্ষা ও নিরাপত্তার বিষয়ে কাজ করে যাবে।”

১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষের স্থায়ী সদস্য মোট ৫টি দেশ। এরা হল আমেরিকা, রাশিয়া, চিন, ফ্রান্স ও ব্রিটেন। বাকি ১০টি অসান রয়েছে অস্থায়ী সদস্য দেশগুলির জন্য। ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের দেশগুলিকে এই অস্থায়ী সদস্যপদ ২ বছরের জন্য দেওয়া হয়। তার জন্য প্রতিবছর রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ পরিষদের ১৯৩টি দেশের মধ্যে থেকে নির্বাচন হয়।

এদিকে ভারত ছাড়াও এখন যে ১০টি দেশ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য, তাদের মধ্যে রয়েছে- বেলজিয়াম, কোতে দ্য ভঁয়ে, ডমিনিকান রিপাবলিক, ইকোয়েটোরিয়াল গিনি, জার্মানি, ইন্দোনেশিয়া, কুয়েত, পেরু, পোল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

বুধবার এশীয়-প্যাসিফিক অঞ্চলের আসনটি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে নেয় ভারত। নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে ভারতকে সমর্থন করে এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার ৫৫টি দেশই। এমনকি, চিন ও পাকিস্তানও ভারতকে সমর্থন করেছে।

33