১৩ টি বেওয়ারিশ লাশ কাদের? গড়িয়ায় কেন? মেয়র কে চিঠি সুজনের।

১২/৬/২০২০,ওয়েবডেস্কঃগড়িয়া শ্মশানে বেওয়ারিশ লাশ প্রসঙ্গে সঠিক তথ্য জানতে চেয়ে মেয়র কে চিঠি লিখলেন বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া আধপোড়া মৃতদেহ প্রসঙ্গে সত‍্য ঘটনা জানতে চেয়ে কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে চিঠি লিখে জানতে চাইলেন বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। চিঠিতে তিনি প্রশ্ন তোলেন “মানুষ সঠিক তথ‍্য জানতে চায়। এই ১৩টি লাশ কাদের? নির্দিষ্ট স্থানের পরিবর্তে বেওয়ারিশ লাশ গড়িয়া শ্মশানে কেন? মৃতদেহগুলোর সাথে করোনার সম্পর্ক আছে কিনা অন‍্য কোনো গোপনীয় কারণ আছে কিনা? এগুলো কি অস্বাভাবিক মৃত্যু হিসেবে নথিভুক্ত? নথিভুক্তর সংখ্যা কত? গড়িয়া শ্মশান থেকে ফেরত যাওয়া লাশগুলোর‌ বর্তমান পরিণতি কী?”

প্রসঙ্গত বুধবার রাত থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় শ্মশান থেকে আধপোড়া মৃতদেহ আংটা দিয়ে টেনে কলকাতা কর্পোরেশন‌ লেখা একটি গাড়িতে তোলা হচ্ছে। ভিডিওতে আরো দেখা গিয়েছে, দুর্গন্ধের কারণে শ্মশানের মূল গেটের বাইরে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

সুজন চক্রবর্তী চিঠিতে লিখেছেন, “কোলকাতা পুরনিগমের এক্তিয়ারভুক্ত গড়িয়া শ্মশানে, গতকাল একসাথে, বহুসংখ্যক মৃতদেহ সৎকার বিষয়ে স্থানীয় মানুষের বিক্ষোভ এবং সেই সংক্রান্ত একটি ভিডিও আমার নজরে এসেছে। গতকাল কোলকাতা পুরনিগমের একটি বিশেষ গাড়ীতে করে হঠাৎ ১৩ টি লাশ নিয়ে যাওয়া হয় গড়িয়া শ্মশানে। পচা-গলা, বীভৎস লাশগুলি দেখে হতচকিত মানুষ ভয় পেয়ে যায় এবং বিক্ষোভ করে। পরে নামানো লাশ তুলে গাড়ী ফেরত চলে যায়। আচম্বিতে, এ ধরনের ঘটনায় গড়িয়া শ্মশান এবং স্থানীয় এলাকায় জনমানসে বিক্ষোভ এবং প্রতিক্রিয়া স্বাভাবিক। স্বভাবতই, মানুষ সঠিক তথ্য জানতে চায়। মানুষের তথ‍্য জানার অধিকার আছে।”

চিঠিতে সুজন চক্রবর্তী অভিযোগ তোলেন যে সাম্প্রতিক সময়ে বারবার বেওয়ারিশ লাশ এবং তাদের সৎকার নিয়ে নানান অভিযোগ উঠছে। মেয়ের দায়িত্ব নিয়ে সমস্ত ঘটনার তদন্ত করে সত্য মানুষের সামনে তুলে ধরুন। চিঠিতে তিনি প্রকৃত ঘটনা দ্রুত প্রকাশের দাবী করেন।

186