‘জ্বর, সর্দি-কাশি হলে আসতে হবেনা অফিসে!’ কর্মীদের নির্দেশ নবান্নের।

সোমবার থেকেই খুলে গিয়েছে সরকারি-বেসরকারি সমস্ত অফিস। ফলে হাজিরা দিতেই হচ্ছে কর্মীদের। বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে হাজিরা ছিল গড়ে ৬০ শতাংশের বেশি। কিন্তু এতে সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তাই দু’দিন অফিস চলার পরেই নতুন নির্দেশিকা রাজ্য সরকারের। এদিন কর্মীদের জন্য রাজ্য সরকার যে নির্দেশ দিয়েছে তাতে বলা হয়েছে, কোনও কর্মীর যদি অল্প জ্বর, সর্দি, কাশি ইত্যাদি দেখা দেয় তবে তাঁকে অফিসে আসতে হবে না।যাঁরা পুরোপুরি সুস্থ, তাঁরাই শুধু অফিসে আসবে এক দিন অন্তর। যে সব কর্মীরা কনেটনমেন্ট জোন‌ে থাকেন তাঁদের এখন অফিসে আসতে হবে না।

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, মুখোমুখি বসে কো‌নও মিটিং বা আলোচনা করা যাবে না। ফোন, ইন্টারকম, ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক সারতে হবে।লিফটে একসঙ্গে তিনজনের বেশি ওঠানামা করা যাবে না। বলা হয়েছে, ১০ জনের বেশি একসঙ্গে এক জায়গায় থাকা যাবে না। বসার ব্যবস্থা এমন করতে হবে যাতে দু’জন কর্মীর মধ্যে কমপক্ষে দু’মিটারের দূরত্ব থাকে।

সরকারের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, প্রতি সপ্তাহে রোস্টার তৈরি করতে হবে। তবে, যাঁরা সচিবালয়ের ডেপুটি সেক্রেটারি বা উচ্চ পদে রয়েছেন, যাঁরা অফিসে আলাদা ঘরে একা বসেন বা চেম্বার রয়েছে, তাঁদের প্রতিদিন অফিস আসতে হবে। ভিজিটর এলেও দুমিটার দূরে বসতে হবে।

125