আদালতে জোর ধাক্কা খেলেন অর্নব! আজই হতে হবে পুলিশের মুখোমুখি।

বম্বে হাই কোর্টেও স্বস্তি পেলেন না সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামী। মুম্বই পুলিশের জেরার মুখোমুখি হতেই হচ্ছে রিপাবলিক টিভির মুখ্য সম্পাদককে। লকডাউনের দ্বিতীয় পর্বের শুরুতে বান্দ্রা স্টেশনে কাতারে কাতারে পরিযায়ী শ্রমিকরা জড়ো হয়েছিলেন। তাদের হঠাতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। সেই ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক রঙ লাগিয়ে খবর পেশ করার অভিযোগে মুম্বই পুলিশ অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়। সেই মামলাতেই পুলিশি জেরা এড়াতে মামলা ওঠানোর জন্য বম্বে হাই কোর্টে আপিল করেন গোস্বামী। কিন্তু মঙ্গলবার সেই আবেদন খারিজ করে হাই কোর্ট নির্দেশ দেয়, ১০ জুন, অর্থাৎ আজ বুধবার পুলিশের মুখোমুখি হতে হবে গোস্বামীকে।

বিচারপতি উজ্জ্বল ভুঁইয়া ও রিয়াজ চাগলার বেঞ্চে এদিন ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে শুনানি হয়। আইনজীবী মাধবী দোশীর মাধ্যমে অর্ণব গোস্বামী একাধিক ছাড়ের আবেদন জানিয়ে রিট আবেদন দাখিল করেছিলেন, তার মধ্যে ছিল ২২ এপ্রিল ও ২ মে-তে তাঁর বিরুদ্ধে জারি হওয়া এফআইআর খারিজের আবেদনও।

অর্ণব গোস্বামী পুলিশের কাছে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজিরা দেওয়া থেকে নিষ্কৃতির জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন, সে আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

অর্ণবের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বিভিন্ন গুরুতর ধারায় যেমন ১৫৩ (বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে বিভেদ, শত্রুতা ও ঘৃণা সৃষ্টির শাস্তি) এবং ২৯৫ এ (ধর্মীয় অনুভূতি আহত করার উদ্দেশ্যে বা কোনও শ্রেণির ধর্ম বা ধর্মবিশ্বাসকে অসম্মান করার উদ্দেশ্যে ইচ্ছাকৃত ও দুরভিসন্ধিমূলক কার্যকলাপের শাস্তি) সহ বিভিন্ন ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে গত ১৯ মে মামলা মহারাষ্ট্র পুলিশ থেকে সিবিআইকে হস্তান্তর করার জন্য অর্ণব গোস্বামীর আবেদন খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। সেসময় গোস্বামীর আইনজীবী হরিশ সালভে শীর্ষ আদালতকে জানান, একজন তদন্তকারী অফিসার করোনা পজিটিভ। তাই মামলা যেন সত্ত্বর সিবিআইকে হস্তান্তর করা হয়। এদিন বম্বে হাই কোর্টও গোস্বামীর আবেদন খারিজ করে দেয়। ইতিমধ্যে একদিন ভিডিও পোস্ট করে গোস্বামী অভিযোগ করেন, গভীর রাতে তাঁর গাড়িতে হামলা চালিয়েছেন কংগ্রেস সমর্থকরা। তখন গাড়িতে তাঁর স্ত্রীও ছিলেন।

149