নিরাপদ নয় ‘আরোগ্যসেতু’ অ্যাপ,জানিয়ে দিলো MIT

২৬শে মে,২০২০:কে না বলেছিলো এই অ্যাপ ডাউনলোডের কথা। লকডাউন শুরু করার আগের রাতের ভাষণে মোদিজি বললেন আরোগ্য সেতু অ্যাপ ডাউনলোড করার কথা। সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হলো, আরোগ্য সেতু অ্যাপ ডাউনলোড করা বাধ্যতামূলক সরকারি কর্মীদের জন্য।বিশেষত যারা করোনার চিকিৎসার কাজে নিযুক্ত আছেন। টিভিতে বহু ব্যয় করে, হিন্দী ফিল্মস্টার দিয়ে বিজ্ঞাপন দেয়া হলো আরোগ্য সেতুর।’সেতু, আরোগ্য সেতু,আমি সবসময় আপনার সাহায্য করব’ অজয় দেবগনের মুখে এই ডায়লগ চললো টিভিতে। এদিকে কিছু লোক প্রশ্ন তুললেন এই অ্যাপ নিয়ে। বিরোধীরা অ্যাপ থেকে তথ্য নিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ আনলেন।যে তথ্য পরবর্তীকালে অন্য কোন কাজে লাগানো হতে পারে। যারা এই অ্যাপ ইন্সটল করবেন তারা তাদের ব্যাক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা হারাবেন। বলেওদাবী করলো বিরোধীরা।অবশ্য সরকারের পক্ষ থেকে বারবার এই অভিযোগ উড়িয়ে দেয়া হয়েছে। তবে এবার বিশ্বের সেরা তথ্য প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এমআইটি স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিল ‘আরোগ্য সেতু’ নিরাপদ নয়।এমনকি এই অ্যাপে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি তথ্য চাওয়া হচ্ছে যার কোন প্রয়োজন নেই বলেও জানিয়েছে এমআইটি।এই সংবাদ সামনে আসতেই চুপ করে গেছেন সরকার পক্ষ। তাদের পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো বিবৃতি আসেনি। অমিত শাহের স্বরাষ্ট্র দপ্তর থেকেও কোনো বিবৃতি দিয়ে এমআইটির দাবী খন্ডন করা হয়নি। বিরোধীরা বলছেন তারা আগেই বুঝতে পেরেছিলেন। বিভিন্নভাবে বার বার মোদি সরকারের প্রবণতা দেখা গেছে জনসাধারণের গোপনীয়তা ভঙ্গ করার। তাদের থেকে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেয়ার কাজ করে চলেছে মোদি সরকার এবং অমিত শাহের নেতৃত্বাধীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এনআরসি এনপিআরের কাজ বন্ধ করার কথা সাময়িকভাবে ঘোষণা করলেও তথ্য সংগ্রহের কাজ তারা বাদ রাখেনি। সেই কারণেই আরোগ্য সেতু অ্যাপ চালু করে মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করছে। এমআইটির বিবৃতির পর স্বাভাবিকভাবেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন যারা এতদিন এই অ্যাপটি ডাউনলোড করেননি। এবং চিন্তার ভাঁজ কপালে পড়েছে এই অ্যাপ ডাউনলোড কারী মানুষদের।

232