ওয়েব ডেস্ক, মে ১৯,২০২০: চলতি সপ্তাহেই কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ৩০০-র বেশি নার্সকে ফিরিয়ে নিয়ে গিয়েছে মণিপুর সরকার।একই পথে হাঁটতে পারে উত্তরপূর্বের আরো রাজ্য। এরফলেই হঠাৎ করে কলকাতার বেসরকারি হাসপাতাল গুলোতে নার্সের সঙ্কট পরে। নার্স সঙ্কট মেটাতে উদ্যোগী হল রাজ্য সরকার। সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, তেমন হলে পুরুষদেরও নার্সের কাজ করার অনুমতি দেবে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। সাত দিনের প্রশিক্ষণ দিয়ে হাসাপাতলগুলিতে নিয়োগ করা হবে তাঁদের। এদিন তিনি বলেন, প্রাইভেট হাসপাতাল থেকে অনেক সিস্টারকে নিয়ে গেছে শুনছি। প্রাইভেট হাসপাতালও আমাদেরই হাসপাতাল। একটা নার্স তৈরি করতে ২-২.৫ বছর সময় লাগে। আমি মুখ্যসচিবকে বলেছি, যে হাসপাতালগুলি থেকে নার্সদেন তুলে নেওয়া হয়েছে তাদের সঙ্গে কথা বলতে।’মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘প্রাইমারি কাজ’ করতে পারে এমন ‘লোকাল লোককে’ নিয়োগ করতে পারবে হাসপাতালগুলি। মেল নার্সও অ্যালাও করে দেওয়া হয়েছে। লোকাল ছেলেমেয়েরা অন্তত সাত দিনের শর্ট ট্রেনিংয়ে স্যালাইনটা দিতে পারবে তাদের কাজটা শিখিয়ে নিতে হবে। অক্সিজেনটা দিতে পারে। ভেন্টিলেটরটা দিতে পারবে না। কিংবা ওষুধটা দেওয়া প্রেসক্রিপশন দেখে। টাইম টু টাইম তার টেমপারেচারটা মাপা… সাত দিনের ট্রেনিং দিয়ে…. এদের নার্স বলা যাবে না, কিন্তু মেল হেল্পার।’তবে সার্জারি বা অন্যান্য গুরুতর ব্যাপারে এদের নিয়োগ করা চলবে না বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

8