ওয়েবডেস্ক,এপ্রিল৮,২০২০:

গর্ভবস্থায় ‘ভ্রুনের লিঙ্গ নির্ধারন’ সংক্রান্ত যে বিধিনিষেধ স্বাস্থ্য দফতরের তরফে লাগু ছিলো আমাদের দেশে বিগত প্রায় ২৬ বছর ধরে, তা আপাতত স্থগিত করে দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

গত ৪ এপ্রিল প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, করোনা ভাইরাসের অতিমারী র দরুন তৈরি হওয়া জরুরি পরিস্থিতিতে দেশের স্বাস্থ্যসংক্রান্ত পরীক্ষা নিরীক্ষার ল্যাব বা আল্ট্রাসাউন্ড কেন্দ্রগুলোতে আপাতত ৩০ জুন’২০ অবধি ভ্রুনের পরীক্ষা বাবদ যে বিস্তারিত রিপোর্ট পাঠাতে হতো স্বাস্থ্য দফতরে, তা এই বিশেষ পরিস্থিতিতে স্থগিত রাখা হলো।

কিন্তু এই নির্দেশিকা প্রকাশ্যে আসার পর থেকে তীব্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্যা তথা জাতীয়স্তরের অন্যতম মহিলা নেত্রী ও সমাজকর্মী বৃন্দা কারাত এই সিদ্ধান্ত কে হঠকারী বলে অভিহিত করেছেন। তাঁর মতে, সর্বভারতীয় তথ্য ও জনগণনা অনুযায়ী ইতিমধ্যেই যেখানে বহু রাজ্যে লিঙ্গ ভারসাম্যের ক্ষেত্রে এক তীব্র বৈষম্য পরিলক্ষিত হয় চলেছে। অন্তত ৭/৮ টি জায়গায় প্রতি হাজার পুরুষ জনসংখ্যা পিছু মহিলাদের সংখ্যা ৯০০ এর নিচে নেমে গিয়েছে,সেখানে এই ধরণের সিদ্ধান্ত অসাধু স্বাস্থ্য ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে লাগামহীন দুর্নীতির জন্য এক কার্যকরী ঢাল হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। দেশের পক্ষে তা নিতান্তই ক্ষতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে বলেই তিনি মত প্রকাশ করেছেন।

13