ওরা পাঁচজন। বছর দশেক আগে। ঃএ শহরের পাঁচজন কৃতি ছাত্র কলকাতায় পড়তে গিয়ে অনুভব করে শুধুমাত্র একটা উজ্জ্বল কেরিয়ার তৈরি করাই জীবনের একমাত্র লক্ষ্য হতে পারে না। বিষয়টা মাথায় চেপে বসতেই সমাজের জন্য কিছু একটা করার ক্ষিদে থেকে সাথে সাথেই সহপাঠী ও বন্ধু – বান্ধবদের সাহায্য নিয়ে সমাজসেবার লক্ষ্য নিয়ে গড়ে ফেলল ফিনফিড। Friends in need friends indeed.

পাঁচজন বন্ধুর সংস্থা আজ ৯১ জন সদস্যের পরিবার। ইতিমধ্যেই ফিনফিড তাদের বিভিন্নরকম বিভিন্নরকম সমাজ সেবামুলক কাজের মাধ্যমে রায়গঞ্জের মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। গতকাল ২রা ফেব্রুয়ারি রায়গঞ্জের বিধান মঞ্চে সারম্বরে পালিত হল ফিনফিড-এর দ্বিতীয় বার্ষিক অনুষ্ঠান।ফিনফিড-এর প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত ডঃ গৌরব বসাকের নামে তারা তাদের এই অনুষ্ঠানের নামকরণ করেছে”আজি গৌরবে তব” A cultural diversity fest। মনোমুগ্দ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি রায়গঞ্জের বিভিন্ন সমাজসেবী ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সম্মান জানানো হয় এদিনের অনুষ্ঠানে। ফিনফিড-এর কর্ণধার সায়ন দাস জানান তারা মানব ধর্মে বিশ্বাসী। শিব জ্ঞানে জীব সেবাই তাদের ব্রত। রায়গঞ্জে, কালিয়াগঞ্জ ও কলকাতার একাধিক অংশে ফিনফিড-এর শাখা ছড়িয়ে পড়েছে। খুব শীঘ্রই শিলিগুড়ি সহ উত্তর বঙ্গের আরো কয়েকটি জায়গায় ফিনফিড শাখা বিস্তার করবে।

ভোগবাদী সমাজ ব্যবস্থায় যখন তরূন প্রজন্ম “আরো বেশি চাইয়ের” সংস্কৃতিতে ঝুঁকে পড়েছে তখন ফিনফিড-এর আহ্বানে সারা দিয়ে একঝাঁক তরূন তরুণী তাদের সামান্য সাধ্য নিয়ে অসাধ্য সাধন করে চলেছে। কুলিক ইনফোলাইনের পক্ষ থেকে ফিনফিডিয়ানদের কুর্নিশ জানাই। পাশাপাশি তারা তাদের লক্ষ্যে এগিয়ে যাক এই শুভেচ্ছা রইল।

29