১১/১/২০২০,ওয়েবডেস্কঃ তামিলনাড়ুর সালেমের বাসিন্দা প্রেমার বয়স ৩১ বছর। জীবনের লড়াই বয়স যেন আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। অনাহার আর অসুস্থতায় ন্যূব্জ শরীর। তিন সন্তানকে নিয়ে কোনওরকমে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াই চলছে। স্বামী আত্মঘাতী হয়েছেন সাত মাস আগে। তারপর থেকেই সংসারে অভাবের ছায়া নেমেছে।

প্রেমা জানিয়েছেন, প্রতারণার শিকার হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন তাঁর স্বামী। নিজের ব্যবসা শুরু করার জন্য আড়াই লক্ষ টাকা ধার নিয়েছিলেন। সেই টাকা শোধ করতে গিয়েই সর্বস্ব খুইয়ে বসেন। মিথ্যা জালে ফাঁসিয়ে সবকিছু লুটে নেন এক ব্যক্তি। এরপর থেকে সংসারের বোঝা টানার দায়িত্ব প্রেমারই। দিনমজুরি, ইটভাটায় কাজ করে যা আয় হয় তাতে একদিনে চারটে পেটে কোনওরকমে চলে যায়। খিদের জ্বালা মেটাতে প্রতিটা দিনই তাঁর কাছে এক একটা নতুন লড়াইয়ের দিন। দু-চারদিন ধরে আধপেটা খেয়েই দিন কেটেছে। এক দিন তো পুরো উপোস। খিদের জ্বালায় তারস্বরে কাঁদছে কোলের শিশু। আর সহ্য করতে পারেননি প্রেমা। অসুস্থ শরীরে দিনমজুরির কাজ করতে পারেননি কয়েক দিন। তাতেই এই বিড়ম্বনা। পাড়া-প্রতিবেশীদের কাছে হাত পেতেও লাভ হয়নি। শেষে মাথার চুল বিক্রি করে সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিলেন মা।

9