ওয়়েবডেস্ক, অক্টোবর ২৬, ২০১৯: ডিটেনশন ক্যাম্পে দুলাল পাল এর মৃত্যুর পর আবার মারা গেলেন ৭০ বছর বয়সী ফালু দাস।

অভিযোগ, অপুষ্টি ও উন্নত চিকিৎসার অভাবে সোয়ালপাড়া ডিটেনশন ক্যাম্পে ২০১৯ সালের জুলাই মাস থেকে বাংলাদেশি সাজিয়ে বন্দি করে রাখা নলবাড়ি জেলার বরক্ষেত্রী চাতেসার গ্রামের ফালু দাস গুয়াহাটি চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ৭০ বছরের বৃদ্ধকে প্রথমে গোয়ালপারা সরকারি হাসপাতালে ও পরে অন্তিম পর্যায়ে গুয়াহাটিতে নিয়ে আসা হয়েছিল।

দুলাল পালের মৃত্যুর কিছুদিন পর আবারও অসমের ডিটেনশন ক্যাম্পে বাঙালি মৃত্যুর খবর সামনে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ল আমরা বাঙালি সংগঠন।

আমরা বাঙালীর অসম রাজ্যের সচিব সাধন পুরকায়স্থ প্রেস বিবৃতিতে বলেন,ডিটেনশন ক্যাম্পে আরেক বাঙালি নলবাড়ির ফালু দাসের মৃত্যু আবারও প্রমাণ করল অসম সরকার রাজ্যটাকে মানবতার বধ্যভূমিতে পরিণত করেছেন।

তিনি ওই বিবৃতিতে আরও জানান, সাধন বাবুর অভিযোগ, অসম সরকারের অমানবিক বাঙালি বিদ্বেষী, স্বৈরাচারী মানসিকতার জন্য ডিটেনশন ক্যাম্পগুলো বাঙালি হত্যার কসাইখানায় পরিণত হয়েছে। আমরা সমস্ত মানবতাবাদী বিশ্ববাসীর কাছে আবেদন রাখছি এই অত্যাচারের বিরুদ্ধে গর্জে উঠুন। এখনও পর্যন্ত ২৭ জন বাঙালি ডিটেনশন ক্যাম্পে নামক কসাইখানায় মৃত্যু হয়েছে, বাকি আর হাজারের উপর বাঙালি মৃত্যুর প্রহর গুনছে।’

33