২৩/১০/১৯,ওয়েবডেস্কঃ পরিবারের জেদে কাছে অবশেষে হার মেনে বাংলাদেশী তকমাপ্রাপ্ত মৃত বৃদ্ধ দুলাল পালকে ভারতীয় ঘোষণা করতে বাধ্য হলো আসাম সরকার। এরপরেই বৃদ্ধের ছেলেরা তুলে নিলেন মৃতদেহ। টানা দশদিন পর মৃতদেহ সৎকারের ব্যবস্থা করলো পরিবার।

উল্লেখ করা যেতে পারে,আজ থেকে দশদিন আগেই ডিটেনশন ক্যাম্পের ভিতরে মারা যান দুলাল চন্দ্র পাল। হাসপাতালে ভর্তির সময় তাকে বাংলাদেশের ঢাকার বাসিন্দা হিসাবে দেখানো হয়। তার মৃত্যুর পরেই শুরু হয় জল্পনা। পরিবারের হাতে দেহ তুলে দেওয়ার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হলেও বাবাকে যেহেতু বাংলাদেশি তকমা দেওয়া হয়েছে সেই কারন দেখিয়ে তার দেহ নিতে অস্বীকার করে পরিবার। টানা দশদিন ধরে হাসপাতালের মর্গেই পরে থাকে দেহ।এতে উত্তাল হয়ে উঠে অসম। ছাত্র থেকে শুরু করে রাজনৈতিক মহল সকলেই অসম সরকারের এনআরসির বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দেন। অবশেষে বাধ্য হতে হয় সরকারকে। লিখিত আকারে বৃদ্ধকে অসমের সোনিতপুর জেলার ঢেকিয়াজুলির অলিসিঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা দেখানোর পরেই দেহ নিয়ে তার সৎকার বৃদ্ধের।

79