ওয়েবডেস্ক সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯ : রাজ্য জুড়ে বেকারদের কাজের দাবীতে সিঙ্গুর থেকে নবান্ন অভিযানের ডাক দেয় বামপন্থী ছাত্র-যুব সংগঠন SFI-DYFI. সেই মোতাবেক পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার বামপন্থী ছাত্র -যুবরা নবান্ন অভিযানে সামিল হয়। মিছিল আটকাতে বিশাল পুলিশবাহিনী রাজপথে নামে। জলকামান ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোঁড়ার পরেও ছাত্র যুবদের মিছিল পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙতে এগিয়ে আসে। মিছিলকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। আহত হয় অসংখ্য ছাত্র-যুব কর্মী। নবান্ন

অভিযানকে ঘিরে ২২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ২২ জনের নিঃশর্ত মুক্তি ও আন্দোলনকারীদের উপর পুলিশের হিংস্র আক্রমনের প্রতিবাদে সারা রাজ্যের সাথে উত্তর দিনাজপুর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের বিভিন্ন জায়গায় ছাত্র-যুবদের প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। রায়গঞ্জ শহরে পুলিশ মন্ত্রীর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয় আবার কোথাও পুলিশদের হাতে আলতা ও ফুল দেওয়া হয়। DYFI নেতা কার্তিক দাস জানিয়েছেন, নবান্ন অভিযানের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জে প্রমাণিত যে দিদি ছাত্র যুবদের মিছিলকে ভয় পেয়েছে। উত্তর দিনাজপুরের কমরেড বিপ্লব, বাবুল ও ঐশানী পুলিশ দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে। এছাড়া DYFI নেতা জয়দেব পাল ও আনসার আলীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁদের নিঃশর্ত মুক্তির চাই। তিনি আরও বলেন, পুলিশ দিয়ে ধমকে চমকে বেকার যুবক যুবতীদের কাজের দাবীকে থামানো যাবে না। DYFI নেতা গৌতম বর্মন জানান, শুক্রবার কাজের দাবিতে নবান্ন অভিযানে এই জেলার দুই জন গ্রেফতার হয়েছে। অবিলম্বে তাঁদের মুক্তি দিতে হবে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে তাঁরা আগামী দিনে আরও বড় ধরনের অভিযানে নামতে চলেছেন।

26