১৬, জানুয়ারী, ২০১৯,ওয়েবডেস্ক : আগামী ১৯শে জানুয়ারি তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশে জাতীয় কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারেন মল্লিকার্জুন খাগড়ে। যা শুনে যারপরনাই ক্ষুব্ধ এ রাজ্যের কংগ্রেস কর্মীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ক্ষোভের আঁচ ছড়িয়ে পরছে। কেউ বা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রকে সোশ্যাল মিডিয়ার

মারফত অনুরোধ করেছেন যে কোনো মূল্যে খাগড়ে কে ব্রিগেডে যাওয়া থেকে বিরত রাখতে আবার কেউ কেউ সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকি দিয়েও রেখেছেন যে খাগড়ে সাহেব মমতার ব্রিগেডে যোগদিতে আসলে এয়ারপোর্ট থেকেই তাকে ফিরে যেতে হবে।
প্রসঙ্গত তৃণমূলের শাসনকালে বার বার কংগ্রেস কে ভাঙিয়ে শাসক দলের শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে। একের পর এক কংগ্রেস থেকে নির্বাচিত এম পি, এম এল এ থেকে পঞ্চায়েত সদস্যকে দল ভাঙিয়ে শাসক দলে যোগ দিতে বাধ্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ভাঙতে ভাঙতে কংগ্রেস প্রায় তলানিতে এসে ঠেকেছিল। তা সত্ত্বেও অনেক কংগ্রেস কর্মী অনেক চাপেও তৃণমূলের কাছে মাথা নোয়ায় নি। সম্প্রতি পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে কংগ্রেসের ভালো ফল এ রাজ্যেও কংগ্রেসকে পুনরোজ্জীবিত করেছে। ইদানিং প্রায়শই উল্টো চিত্র লক্ষ করা যাচ্ছে, শাসক দল ও বিজেপি থেকে এখন অনেকেই আবার করে কংগ্রেসে ফিরতে শুরু করেছে। মুর্শিদাবাদে অধীর চৌধুরী যেন তার পুরণো ফর্মে ফিরছেন। সোমেন মিত্রের নেতৃত্বে কংগ্রেস কে লোকসভা ইলেকশনের আগে বেশ চার্জড লাগছে ইদানিং। তাই কংগ্রেস কর্মীরা আর কোনো ভাবেই তৃণমূলকে একচুলও জায়গা ছাড়তে রাজি নন।

40