২/১/১৯,ওয়েবডেস্কঃ সকাল থেকে রাত, মধ্যাহ্ন থেকে মধ্যরাত্রি এবার থেকে নিজামের শহর কতটা নিরাপদ তা খতিয়ে দেখবে স্বয়ং মহিলা পুলিশরাই। এবার থেকে বাইকে চেপে ঘুরে দেখবেন শহরের অলি-গলি। ঠেকাবেন বেআইনি কার্যকলাপ। দক্ষ মহিলা পুলিশ কর্মীদের ওপর এই গুরু দায়িত্বই দিতে চলেছে হায়দ্রাবাদ পুলিশ।মঙ্গলবারই হায়দ্রাবাদের অতিরিক্ত কমিশনার ঘোষণা করেছেন, শহরে নিরাপত্তার নজরদারিতে এখন থেকে থাকবে “উইমেন অফ হুইলস”।

নতুন বছরের সূচনাতেই হায়দ্রাবাদ পুলিশের এই অভিনব ঘোষণায় খুশি কিন্তু মহিলা বাহিনী । কিছুদিনের মধ্যেই হায়দ্রাবাদ কয়েক হাজার মহিলা পুলিশে ছয়লাপ থাকবে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় ২০ টি দলে ছড়িয়ে থাকবেন তাঁরা। প্রত্যেকটি দলেই থাকবেন একজন করে মহিলা পুলিশ আধিকারিক।

হায়দ্রাবাদ পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মহিলা পুলিশের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া ও তার সাথে সাথে দক্ষতা বৃদ্ধির কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বাছাই করা তাবর তাবর পুলিশদের নিয়ে তৈরি হয়েছে’উইমেন অন হুইলস’।যাদের দক্ষতা ও ক্ষমতা কোনও অংশে পুরুষদের থেকে কম নয়। দুই মাস ধরে বিশেষ প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তাঁরা। গাড়ি, বাইক চালানো, অস্ত্র ছাড়া লড়াই, প্রযুক্তিগত কিছু ট্রেনিং রপ্ত করেছেন প্রত্যেকে।

রাত থেকে ভোর, বাইক-গাড়িতে লাগাতার টহলদারি চালিয়ে যায় হায়দরাবাদ পুলিশ। দায়িত্ব বেশি থাকায় প্রথমে মহিলাদের সঙ্গে পুরুষ পুলিশদের রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু তাতে মারাত্মক আপত্তি জানায় মহিলা পুলিশ বিভাগ। তারপরেই সম্পূর্ণ দায়িত্ব তাঁদেরকেই দেওয়া হয়।

মঙ্গলবারই হায়দ্রাবাদের পুলিশ ঘোষণা করেন, এখন থেকে ১০০ নম্বর ডায়াল করলে মহিলা পুলিশের গলাই শুনতে পাবেন হায়দ্রাবাদবাসী।এই সিদ্ধান্তে মহিলাবাহিনীর পাশাপাশি খুশি শহরের আমজনতা। তাঁরা জানিয়েছেন, হায়দ্রাবাদে মহিলা পুলিশের টহলদারি ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত।হায়দ্রাবাদের এই সিদ্ধান্তই অন্যান্য রাজ্যকেও ভবিষ্যতে পথ দেখাবে।

28