Categories
অর্থনীতি

আবার বোমা …… এবার ফাটালেন খোদ দলেরই এক সাংসদ !

14/12/2018, ওয়েবডেস্ক: ইতিমধ্যেই সরগরম সারা দেশ ! আর বি আইএর গভর্নর পদে আইএএস অফিসার শক্তিকান্ত দাসের নাম ঘোষণার পরই তা নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে সমস্ত মহলে। বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের ‘ঘনিষ্ঠ’ বলে পরিচিত শক্তিকান্ত দাসকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নতুন গভর্ণর হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পিছনে তার নোটবন্দির ধকল সামলানোর ক্যারিশমাকেই স্বীকৃতি দেওয়া হলো বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। এবার মোদী সরকারের প্রাক্তন আর্থিক উপদেষ্টা শক্তিকান্তকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর করার সিদ্ধান্ত ভুল বলে দাবি করে বোমা ফাটালেন খোদ বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীও। স্বামীর মন্তব্যে কার্যত রক্তচাপ বাড়িয়ে তুলল কেন্দ্রের।

সোমবার রিজার্ভ ব্যাঙ্কে গভর্নর পদ থেকে ইস্তফা দেন উর্জিত প্যাটেল। ২৪ ঘণ্টা না কাটতেই ওই পদে বসানো হয় কেন্দ্রের প্রথম সারির আমলা শক্তিকান্তকে। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মতো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাথায় একজন আমলাকে বসানোয়, যিনি আবার অর্থনীতির ধারে পাশের ও শিক্ষার্থী নন, রীতিমতো প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছে, যেখানে পূর্বসূরী গভর্নরদের অর্থনীতির পাণ্ডিত্য নিয়ে প্রশ্ন ওঠে না, সেই জায়গায় একজন ইতিহাসের স্নাতক আমলা কীভাবে স্বশাসিত প্রতিষ্ঠানকে চালাবেন! বিতর্ক আরও দানা বাঁধছে, কারণ এই মুহূর্তে নানা আর্থিক ইস্যু নিয়ে জর্জরিত দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্ক। সমস্যা সমাধানে অপারগ হয়েই ইস্তফা উর্জিত প্যাটেলের বলে মনে করা হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে নোটবন্দির মতো সমস্যার অভিজ্ঞতা নিয়ে কতটা মোকাবিলা করতে সক্ষম হবেন শক্তিকান্ত, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

তবে এবার গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের বিরুদ্ধে আরও গুরুতর অভিযোগ আনলেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তিনি অভিযোগ করেছেন, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন শক্তিকান্ত দাস। এমনকি বিজেপি নেতার দাবি, বিভিন্ন মামলায় চিদম্বরমকে বাঁচানোর চেষ্টাও করেছিলেন তিনি। তাঁর কথায়, “আমি জানি না কেন তাঁকে গভর্নরের পদে বসানো হল।” কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে চিঠিও লিখেছেন বলে দাবি করেন সুব্রহ্মণ্যম। এখন স্বামীর মন্তব্য কেন্দ্রকে আরও চাপে ফেলল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। উর্জিত প্যাটেলের পদত্যাগে একেই ব্যাকফুটে মোদী সরকার। তার উপর শক্তিকান্তকে গভর্নর করে কেন্দ্র নিজেদের নীতি চাপাতে চাইছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এর পর স্বামীর মন্তব্য মোদি সরকারকে আরো গাড্ডায় ফেলবে বলেই ধারণা সমস্ত মহলের।

78

Leave a Reply