Categories
জেলার খবর

ফের উত্তপ্ত চোপড়া

14/12/2018, মুতাহার কামাল, চোপড়া:- ফের শাসক দল এবং বিরোধী গোষ্ঠির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল চোপড়া থানার ঘিরনীগাঁও। এলাকায় সম্প্রতি একের পর এক বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তাপ এর রেশ সেখানে ছিলই। সেখানে শুক্রবার যেন পরিস্থিতি আরো ভয়ানক হয়ে উঠলো। আগুনে পুড়লো দুই পক্ষেরই দুটো ঘর।

এদিন পুলিশের পাশাপাশি শাসক দলের নেতৃত্ব বিরোধী কংগ্রেস এবং সিপিএম জোট এর উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ।যদিও এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভাবে ভিত্তিহীন এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে শাসক দল দাবি করেছেন। এদিন সেখানেও বিক্ষিপ্তভাবে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ উঠে এসেছে বিভিন্ন মহল থেকে।

ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা এবং আতঙ্ক ছড়িয়েছে বিয়ে বাড়ির আত্মীয় পরিজন সহ আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যেও। সূত্রের খবর, এদিন ঘিরনীগাঁও গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্যরা দপ্তরে ঢুকতে গেলে বিরোধী কংগ্রেস ও সিপিএম জোট তাদের বাধা দেয়।সেখান থেকেই গন্ডগোলের সূত্রপাত। স্থানীয়দের অভিযোগ,পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের নামে পাল্টা তান্ডব চালায়।

যার উত্তাপ পৌঁছে যায় একটি বিয়ে বাড়িতেও। যদিও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কার্তিক চন্দ্র মন্ডল জানিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন। বরং এদিন উত্তপ্ত পরিস্থিতির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে। অন্যদিকে চোপড়া ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায় জানান, পুলিশ এবং তৃণমূল কংগ্রেস যৌথভাবে এলাকায় বিভিন্ন রকম ভাবে তাণ্ডব চালাচ্ছে।

তার জেরেই পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। যদিও এই অভিযোগকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে আখ্যা দিয়ে এলাকার তৃণমূল নেতা জিয়াউল হক জানান, এদিন তারা পঞ্চায়েতে ঢুকতে গেলে কংগ্রেস এবং সিপিএম জোটের সদস্যদের হাতে তারা বাধাপ্রাপ্ত হন।

সেখান থেকেই গণ্ডগোলের উৎপত্তি। ফলে অভিযোগের তীর সম্পূর্ণ তাদের দিকেই।

66

Leave a Reply