29/11/2018, ওয়েবডেস্ক : মানুষ মানুষের জন্যে। এই কথাটি সকলের জানা থাকলেও কয়জন তা মানে বা পালন করে। এই আখের গোছানোর যুগেও তবু মাঝে মাঝে কিছু দেবদূতের মত মানুষের হঠাৎ করে দেখা পাওয়া যায় আশেপাশেই। এমনি একজন মানুষ হলেন ইসলামপুরের রফিক আলম।

পেশায় ছোটো ব্যবসায়ী। এলাকার মানুষ যাকে সৎ,দয়ালু ও মিষ্টি ভাষী হিসেবে চেনে। এলাকায় ঘুরে বেড়ানো এক বদ্ধ উন্মাদ যাকে কখনো উলঙ্গ,কখন ছেঁড়া কাপড়ে দেখা যেতো। দেখা যেতো রাস্তার ধার থেকে খাবার খুঁটে খেতে। তাকেই একদিন রফিক আলম একরকম জোর করেই নিজের বাড়িতে নিয়ে যান। স্নান করিয়ে পোশাক পরিয়ে খাবার খাইয়ে ঘুমের ওষুধ দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে চিকিৎসার জন্য নিজের খরচেই বহরমপুরে নিয়ে যান।নিজ খরচে দীর্ঘদিন চিকিৎসা করান।দীর্ঘদিনের চিকিৎসার পর বদ্ধ উন্মাদ যুবকটি সুস্থ হয়ে ওঠে। ফিরে পায় নিজের স্মৃতি। সকলকে জানায় নিজের নাম মিঠুন বিশ্বাস,বাড়ি কাটিহার।

এরপরেই তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা হলে মিঠুনের মা তার হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে ফেরত নিতে আসেন। রফিক আলম মায়ের হাতে তার সুস্থ ছেলেকে তুলে দিলেন। এই মিলন সকলের চোখে এনে দিল আনন্দাশ্রু।

17