Categories
রাজ্য

অনিবার্য মুখ্যমন্ত্রীর মুখ,রাজ্যের স্কুলে স্কুলে নির্দেশ পাঠালো শিক্ষা দপ্তর

২০/১১/১৮,ওয়েবডেস্কঃ সরকারি দপ্তর গুলোতে আগেই ছিল।ছিল যে কোন সরকারি ঘোষনা পত্রে।এখন থেকে স্কুল গুলোকেও শিক্ষা দপ্তর থেকে এক নির্দেশিকা জারি করে মুখ্যমন্ত্রীর মুখের ছবি সহ ব্যানার ঝোলানোর কথা বলা হলো। সোমবার ইমেলে রাজ্যের সরকার পোষিত এবং সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত স্কুল গুলোতে এক নির্দেশিকা জারি করে একথা বলা হয়েছে। ইমেলে বিষয়টিকে ‘ভেরি ভেরি ইম্পর্ট্যান্ট ‘ বলে উল্লেখ এটি স্কুলের ‘প্রমিনেন্ট’ জায়গায় টাঙানোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে ব্যানারের সফট্ কপিও পাঠানো হয়েছে।স্কুল গুলোকে সফট কপি অনুযায়ী বানিয়ে নিতে হবে ব্যানার।
এই ব্যানারের বাঁদিকের বড় অংশ জুড়ে রয়েছে মু্খ্যমন্ত্রীর মুখ।ডানদিকে ওপরে লেখা রয়েছে ‘পশ্চিমবঙ্গের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায়’।তার নীচে বিবেকানন্দের একটি অপেক্ষাকৃত ছোট ছবি এবং তার নীচে ২০১৮ সালের ‘মেরিট অ্যান্ড মিনস্ স্কলারশিপের’ জন্য ছাত্রছাত্রীদের আবেদন করার বিষয়টি রয়েছে।আসলে বিজ্ঞাপনটি এই স্কলারশিপের জন্যই দেওয়া হয়েছে।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০০৬-০৭সালে তৎকালীন মখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টচার্যের নেতৃত্বধীন বামফ্রন্ট সরকার বার্ষিক আড়াই লক্ষ টাকার কম উপার্জনক্ষম পরিবারের একাদশ শ্রেণী থেকে গবেষণা স্তর কৃতি ছাত্র ছাত্রীদের সহায়তার জন্য এই স্কলারশিপ চালু করেছিলো। দপ্তর সূত্রে খবর এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ছবিসহ বিজ্ঞাপন এই প্রথম।সর্বত্র মুখ্যমন্ত্রীর ছবিতে ছয়লাপ।বাদ পড়েনি কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসবের মঞ্চও।এ নিয়ে কথা উঠেছে বিভিন্ন মহলে।এ সব বিতর্কের মধ্যেই আবার ছাত্রছাত্রীদের দেওয়া স্কলারশিপের জন্যও মুখ্যমন্ত্রীর মুখ ব্যবহার করাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্যই বলে মনে করছেন অনেকে।
শিক্ষা দপ্তরের এক অধিকর্তা সরকারের বিভিন্ন কাজের বিজ্ঞাপনে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ব্যবহারের কথার উল্লেখ করে স্কুলে স্কলারশিপের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার নিয়ে বিভিন্ন মহলে ওঠা কথাকে অর্থহীন বলে উল্লেখ করলেও বিতর্ক কিন্তু থামছে না।
শিক্ষক সংগঠন এবিটিএ-এর রাজ্যসম্পাদক কৃষ্ণপ্রসন্ন ভট্টাচার্যের কটাক্ষ “গোটা চলচিত্র উৎসব জুড়ে ওঁর ছবি ছিল।এখন এখানেও ওঁর ছবি দেওয়া হচ্ছে।আগে কখনো এমন হয়নি।” এসটিএ-এর সম্পাদক বিশ্বজিত রায় বলেন “স্কুল আত্মপ্রচারের জায়গানয়।এই সহজ সত্য যদি শাসক বিস্মৃত হন তা অত্যন্ত দূর্ভাগ্যজনক।” প্রেসিডেন্সী কলেজের অধ্যাপক অমল মুখোপাধ্যায় বলেন “একজন মুখ্যমন্ত্রী স্কুলে স্কুলে নিজের ছবি দিয়ে বেড়াচ্ছেন এ-ও সম্ভব!”

133

Leave a Reply