Categories
অন্য খবর

তালিবান জঙ্গি গোষ্ঠীর কায়দায় পাঁচ বাঙালিকে হত্যার অভিযোগ আলফা জঙ্গি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে

২/১১/১৮,ওয়েবডেস্কঃ ঘটনার বর্ননা শুনলে প্রথমে মনে হবে তালিবান জঙ্গি গোস্টির ভয়ঙ্কর এই কান্ড। যে ঘটনার বর্ননা করতে গিয়ে খোদ প্রশাসনের কর্মীদের হাড় হিম হয়ে যাচ্ছে। কেঁপে উঠছেন উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাই। স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে খবর, ব্রহ্মপুত্রের ধারে দাঁড় করিয়ে ৫ বাঙালি অবিনাশ বিশ্বাস , শ্যামল বিশ্বাস , অনন্ত বিশ্বাস, সুবল দাস ও ধনঞ্জয় নমঃশূদ্রদের পর পর লাইনে দাঁড় করিয়ে অকথ্য অত্যাচারের পর খুন করে আলফা জঙ্গিরা

নিহত ৫ বাঙালি তিনসুকিয়ার খেরাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার সন্ধে ৭টা নাগাদ খেরবাড়ির সন্ধ্যায় ৫যুবক একটি দোকানের সামনে আড্ডা মারছিলো। হঠাৎ সেই সময় গাড়ি নিয়ে হানা দেয় আলফার ৪-৫ জঙ্গি।জঙ্গিরা নিজেদের জঙ্গিরা নিজেদের জঙ্গি গোষ্ঠীর পোশাকেই ছিলো বলে খবর। যারা দোকানের সামনে থেকে ঐ ৫ যুবককে তুলে নিয়ে যায়। ঐ পাঁচ যুবকদের ব্রহ্মপুত্রে ধারে দাঁড় করিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে জানা যাচ্ছে।

এরপরই তালিবান জঙ্গি গোষ্ঠীর কায়দায় লাইনে দাঁড় করিয়ে ৫ বাঙালির নাম জিজ্ঞেস করে জঙ্গিরা। প্রথমে তাঁদের হাতে, পায়ে গুলি করে ও তারপর ৫ বাঙালিকে খুন করে আলফা জঙ্গিরা। ততক্ষণে ৫ জনের পরিবারের কাছে খবর পৌঁছয়, রাত ৯টা নাগাদ মৃতদের দেহ ব্রহ্মপুত্রের ধার থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

নৃশংস এই গণহত্যার পরই গোটা এলাকা ঘিরে ফেলেছে পুলিশ ও সেনা। অসম-অরুণাচলপ্রদেশ সীমান্ত দিয়ে আলফা জঙ্গিরা ঢুকেছে বলে মনে করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই সীমান্ত ব্লক করে দেওয়া হয়েছে।

সাধারন মানুষ এমনকি অসমে বসবাসকারী বাঙালীরা প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে অসমের বাঙালিদের টার্গেট করেই এই গণহত্যা?? কারণ, এই বছর ১৩ অক্টোবরই গুয়াহাটিতে আলফা জঙ্গিদের বিস্ফোরণে আহত হয়েছিলেন ৪ বাঙালি। পরে জানা যায়, অসমে বাঙালিদের তাড়াতেই এই বিস্ফোরণ।

76

Leave a Reply