৩০/১০/১৮,ওয়েবডেস্কঃ করোবা চৌথের পরই দিল্লি ফেরার কথা ছিল। সেই মতোই প্যাকিংও সেরে ফেলেন। সোমবার সকালে সব শেষ। সমুদ্রে ভেঙে পড়া বিমানের পাইলট যে তাঁরই স্বামী, জানতে পারেন গরিমা শেঠি।
৫ নভেম্বর দিল্লিতে গিয়েই হোমকামিং পার্টির তোড়জোড় করবেন বলে বন্ধুদের জানান পাইলট ভাব্যে সুনেজা।
।করোবা চৌথের ছবিও ফেসবুকে পোস্ট করেন সুনেজার স্ত্রী গরিমা শেঠি। সেই ছবি দেখতে দেখতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন সুনেজার দিল্লির বন্ধুরা।
স্ত্রী গরিমা শেঠির সঙ্গে ২০১৬ সালে বিয়ে হয় পাইলট ভাবিয়ে সুনেজা তাঁর। ইন্দোনেশিয়াতেই স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন। হাসিখুশি সেই ছেলেই আর কোনওদিনই দেশে ফিরবেন না। সুনেজার উদ্ধার হওয়া দেহাংশ, ব্যাগ, ঘড়ি কফিনবন্দি করেই দেশের পথে স্ত্রী গরিমা।
জাভা সমুদ্রে দুর্ঘটনায় পড়া বিমানের পাইলট ছিলেন সুনেজা। স্থানীয় সময় সোমবার ৬টা বেজে ২০ মিনিট নাগাদ রওনা হয় বিমানটি জাকার্তা থেকে সুমাত্রা দ্বীপের পঙ্কল পিনাং গামী যাত্রীবাহী বিমান লায়ন এয়ারের JT610
। ওড়ার ১৩ মিনিট পর থেকে আচমকাই মাঝ-আকাশ থেকে উধাও হয়ে যায় বিমানটি । এরপরেই জাভা সমুদ্রে ১৮৯ যাত্রী নিয়ে বিমানটি ভেঙে পড়ার খবর পাওয়া যায়। ঐ বিমানেরই পাইলট ছিলেন দিল্লির ময়ূর বিহারের বাসিন্দা ভাব্যে সুনেজা। গত সাত বছর ধরে ওই বিমান সংস্থায় কর্মরত ছিলেন তিনি।

25