২৯/১০/১৮,ওয়েবডেস্ক: কথায় আছে যে রাঁধে সে চুল ও বাঁধে ! অর্থাৎ যিনি ব্যক্তিগতজীবনে দায়িত্বশীল তিনি সবক্ষেত্রেই তার দায়িত্ব পালনে নিষ্ঠ থাকেন। সেই দৃষ্টান্ত ই তুলে ধরলেন মধ্যপ্রদেশের ঝাঁসির মহিলা পুলিশকর্মী অর্চনা জয়ন্ত। ইতিমধ্যেই তার কর্তব্য নিষ্ঠার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভাইরাল। সন্তানের প্রতি কর্তব্যের পাশাপাশি নিজের উর্দির প্রতি দায়িত্ব পালনেও একচুল চ্যুত হননি ঝাঁসির এই পুলিশকর্মী। নিজের কাজের প্রতি তিনি এতটাই নিষ্ঠাবান যে একরত্তি মেয়ে অনিকাকে নিয়েই থানায় আসেন। ডেস্কে ঘুম পাড়িয়ে রেখে মন দেন কাজে। তার সেই ছবি এবার টনক নড়ালো প্রশাসনের ও। ভাইরাল হওয়ার খানিকক্ষণের মধ্যেই মঞ্জুর হলো অর্চনার বদলির আবেদন। মধ্য প্রদেশের ডিজিপি ওম প্রকাশ সিং জানিয়েছেন, আগ্রাতে বদলি করা হয়েছে অর্চনাকে। সেখানেই থাকেন অর্চনার বাবা-মা।

রবিবার বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে ট্রেন্ডিং ছিলেন ঝাঁসির কোতয়ালি থানার মহিলা কনস্টেবল অর্চনা জয়ন্ত। ২০১৬ সালে থেকে ঝাঁসিতে পোস্টেড রয়েছেন তিনি। নিজের দায়িত্ব এবং কর্তব্যের প্রতি অর্চনার নিষ্ঠা দেখে তাঁকে কুর্নিশ জানিয়েছিলেন মানুষ। নিমেষের মধ্যে অর্চনা হয়ে গিয়েছিলেন ‘রোল মডেল’। সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছিলেন, চাকরি সূত্রে ছ’মাসের মেয়ে অনিকাকে নিয়ে ঝাঁসিতে ভাড়া থাকেন তিনি। তাঁর নিজের বাবা-মা থাকেন আগ্রাতে। শ্বশুর-শাশুড়ি থাকেন কানপুরে। তাঁদের কাছেই থাকেন অর্চনার বড় মেয়ে। আর তাঁর স্বামী চাকরি সূত্রে থাকেন গুরগাঁওতে। অর্চনা জানান, আগ্রাতে বদলির জন্য আগেই আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়ের সঙ্গে ছবি ভাইরাল হওয়ায় কিছুক্ষণের মধ্যেই উত্তর প্রদেশ পুলিশ মঞ্জুর করেছে তাঁর বদলির আবেদন।

31