Categories
অন্য খবর

আবার স্কুলে নারকীয় ঘটনা, বলি এক শিক্ষক

২৮/১০/১৮,ওয়েবডেস্কঃসাধারণত স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের ব্যাগে বইখাতা কলম ইত্যাদির পাশাপাশি ইদানিং মোবাইলও পাওয়া যায় আকছার। কিন্তু এবার সেই স্কুলব্যাগেই দেখা মিললো প্রাণঘাতী এক বস্তুর যার আঘাতে সাংঘাতিক আহত অবস্থায় শিক্ষককে ভর্তি করা হলো হাসপাতালে। ঘটনাটি দক্ষিণ দিল্লির একটা সরকারি স্কুলের।

ওই স্কুলেই এক ছাত্র স্কুলব্যাগে করে এনেছিলো একটা লোহার রড।মাস্টারমশাইয়ের চোখ এড়ায়নি ঘটনাটা। রড কেন এনেছে প্রশ্ন করতেই প্রথমটায় ঘাবড়ে গিয়েছিল ক্লাস এইটের ছাত্রটি। এরপর রড কেড়ে নিয়ে শিক্ষক ধমক দেন ছাত্রকে, জানান বিষয়টি তিনি ছাত্রের বাড়িতে জানাবেন। তখনই ওই ছাত্র শিক্ষকের হাত থেকে আচমকা রড কেড়ে নিয়ে সোজা বসিয়ে দেয় তাঁর কপালে।

শনিবার সকালে ঘটা ওই আকস্মিক ঘটনায় ক্লাস রুমেই রক্তাক্ত অবস্থায় বসে পড়েন শিক্ষক। এরপর ক্লাসের অন্য ছাত্ররা খবর দেয় স্কুলের অফিস ঘরে। জখম শিক্ষককে ভর্তি করা হয়েছে অল ইন্ডিয়া মেডিক্যাল সায়েন্সের ট্রমা কেয়ার সেন্টারে। এখন তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে।
এরপর স্কুলের তরফে ওই ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয় স্থানীয় থানায়। পুলিশ জানিয়েছে, ৩০৮ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে অভিযুক্ত ছাত্রের বিরুদ্ধে।
প্রত্যক্ষদর্শী অন্যান্য ছাত্রদেরও বয়ান নিয়েছে পুলিশ। এক পুলিশ কর্তার কথায়, “ক্লাসের অন্যান্য ছাত্ররা জানিয়েছে, শিক্ষক প্রথমে ছাত্রের বেঞ্চের সামনে এসে তার অনিয়মিত স্কুলে আসা নিয়ে প্রশ্ন করছিলেন। কোনও উত্তর না দিয়ে ছাত্রটি বারবার ব্যাগে হাত দিচ্ছিল বলে জানিয়েছে ছাত্ররা। এরপর শিক্ষকের সন্দেহ হওয়াতে ব্যাগের চেন খুলতেই দেখা যায় একটি রড রাখা রয়েছে। কেড়ে নেন শিক্ষক। তখনই শিক্ষকের হাত থেকে ওই রড কেড়ে নিয়ে তাঁকে মারে ওই ছাত্র।”

এই ঘটনার পর শনিবার বন্ধ করে দেওয়া হয় স্কুল। স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে আগামী মঙ্গলবার স্কুলের সমস্ত অভিভাবকদের নিয়ে সভা করা হবে। আকস্মিক এই অনভিপ্রেত ঘটনায় হতবাক শিক্ষক থেকে অভিভাবক মহল। শিক্ষার্থীদের মধ্যে এধরণের হিংসাত্মক মানসিকতার প্রকাশ নিয়ে ভবিষ্যতে মনোবিদদের সাথে কথা বলা প্রয়োজন বলে তারা মনে করছেন।

107

Leave a Reply