বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের যোগাযোগের অন্যতম হাতিয়ার। আমরা খুব সহজেই সোশ্যাল মিডিয়া মারফত যেমন রাজ্য, দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পরিচিত মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখতে পারি তেমনই নতুন নতুন মানুষের সাথে যোগাযোগ গড়েও তুলতে পারি। সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের হাতের মুঠোয় দুনিয়ার খবরাখবর যেমন হাজির করে তেমনি দেশ বিদেশের ঘটমান বিষয়ে আমাদের মতামতও আমরা সহজেই অন্যদের সাথে শেয়ার করতে পারি। স্বাভাবিক ভাবেই তাই সোশ্যাল মিডিয়াকে এখন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে সেলিব্রিটি প্রত্যেকেই আত্মপ্রচারের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলোয়ারের সংখ্যা দ্বারা এখন জনপ্রিয়তার বিচার হয়। তাই অনেক ক্ষেত্রেই ফলোয়ারের সংখ্যা বাড়ানোর ব্যাপারে তাদের নিজস্ব বা দলীয় উদ্যোগ থাকে। কিন্তু সম্প্রতি সবাইকে অবাক করেছেন দিল্লির আটপৌরে গৃহবধূ কিরন যাদব। নন সেলিব্রিটি এই গৃহবধূর ফেসবুকে ফলোয়ারের সংখ্যা জানলে আপনি চমকে যেতেই পারেন। হ্যা, সংখ্যাটা নয় লক্ষাধিক। বিহারের বৈশালী শহরের মেয়ে কিরনের বিয়ে হয়েছে দিল্লিতে। একসময় একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরিতে নিযুক্ত থাকলেও এখন তার একমাত্র পরিচয় গৃহবধূ।
ফেসবুকে গ্ল্যামারাস বা স্বল্প বসনা ছবি পোস্ট করে নয়, কিরনের জনপ্রিয়তা দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘটা সমসাময়িক সামাজিক বা রাজনৈতিক বিষয়ে তার সাবলীল, বলিষ্ঠ মতামত ফেসবুকের মাধ্যমে মানুষের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে বলেই। আদ্যন্ত হিন্দিতে লেখা পোস্ট গুলি সহজ সরল ভাষায় লেখা হলেও তার আকর্ষণীয় দক্ষতা খুব সহজে মানুষের মন জয় করে। তার পোস্ট গুলির বেশিরভাগই এদেশে রাজনৈতিক ব্যাবসা খুলে বসা নেতা নেত্রীদের বিরুদ্ধে তীব্র শ্লেষাত্মক সমালোচনায় ভরা। তার পোস্টের যুক্তি গ্রাহ্যতা মানুষকে সহজেই আকর্ষণ করে। তার ফলোয়াররা তার নতুন পোস্টের জন্য অপেক্ষা করেন। তবে রাজনীতির বাইরেও সে ভ্রমণ কাহিনী সহ অন্য বিষয়েও ফেসবুকে লেখে। প্রতিটি পোস্টে গড়ে 5-6 হাজার লাইক পরে। স্বাভাবিক ভাবেই কিরন যাদবের সোশ্যাল মিডিয়াতে এই জনপ্রিয়তা এখন নিউজ মিডিয়াতেও একটি অন্যতম আলোচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

39