২৬/০৯/১৮,ওয়েবডেস্ক: আজ কাটিহার ডিভিশানে উত্তর সীমান্ত রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজারের ডাকা কাটিহার ডিভিশানের আট সাংসদের সাথে এক আলোচনা সভায় তেভাগা লিংক এক্সপ্রেসের তীব্র বিরোধিতা করলেন বালুরঘাটের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ। রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিমের পক্ষ থেকে যখন রাধিকাপুর কলকাতা তেভাগা লিংক এক্সপ্রেস কবে থেকে চালু করা হবে তা জানতে চাওয়া হয় তখন বক্তব্যের মাঝপথে এর বিরোধিতা করেন বালুরঘাটের তৃণমূল সাংসদ। তিনি বলেন, একলাখিতে কোচ সংযোজন ও বিয়োজনে অযথা কালক্ষেপ হবে। জেনারেল ম্যানেজার সঞ্জীব রায় অর্পিতাদেবীর মতকে মান্যতা দিয়ে একই সুরে বলেন, তেভাগা লিঙ্ক চালু করা সম্ভব নয়। রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিম সঞ্জীববাবুকে তাঁর দপ্তরের লিখিত প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করান এবং জানতে চান যে, তাঁর পূর্বের লিখিত প্রতিশ্রুতি ও বর্তমান বয়ানে এত বিভেদ কেন। তিনি উত্তর সীমান্ত রেলওয়ের এই আধিকারিককে আরো বলেন যে কলকাতার সাথে উত্তর দিনাজপুরের সংযোগকারী এই দিনের ট্রেনটির সাথে জড়িয়ে আছে রায়গঞ্জ ও তৎসংলগ্ন এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের আশা। সি পি আই এমের উত্তর দিনাজপুর জেলা সম্পাদক শ্রী অপূর্ব পাল এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন, দুই দিনাজপুরের মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে চাইছেন অর্পিতা দেবী। তিনি উত্তর সীমান্ত রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে কার্যত হুঁশিয়ারি দেন এই বলে যে, রেলের এই সিদ্ধান্তের ফলে উত্তর দিনাজপুরে উত্তর সীমান্ত রেলওয়ের সমস্ত ট্রেন যোগাযোগ অতি শীঘ্রই ব্যাহত করে দেওয়া হবে।

49