২৩/০৯/১৮,ওয়েবডেস্কঃ দাড়িভিট স্কুলের ঘটনা যখন গোটা রাজ্য সহ দেশকে নাড়িয়ে দিয়েছে ঠিক তখনি দাড়িভিট কান্ড নতুন মোড় নিলো।আটক করা হলো বিতর্কিত উর্দু শিক্ষক মহঃ সানাউল্লাহকে। তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ সুপার ও এসডিপিও। মহঃ সানাউল্লাহকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তারা জানার চেষ্টা করছে দুই দিন জয়েন করতে না পারার পরও কারা তাকে সেদিন স্কুলে জয়েন করতে যেতে বলেন। প্রসঙ্গত, ঐ শিক্ষক প্রায় ষোলো দিন ধরে দাড়িভিটে একটি বাড়িতে ভাড়া নিয়ে বাস করছিলেন। আগে দুবার ছাত্র বিক্ষোভের কারনে কাজে যোগ দিতে না পারার পরও কেনো ১৮ তারিখ তিনি আবার কাজে যোগ দিতে যান। কে বা কারা তাকে মূত যোগাচ্ছে তা জানতেই তাকে আটক করে জেরা চলছে।

সুত্রে খবর, শিক্ষক মহম্মদ সানাউল্লাহর কলকাতার খিদিরপুরে বাসিন্দা৷ চলতি মাসের ১৫ সেপ্টেম্বর প্রথম দাঁড়িভিট হাইস্কুলে উর্দুর শিক্ষক হিসাবে কাজে যোগ দিতে যান তিনি৷ কিন্তু সেখানে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাঁকে। অভিযোগ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির ক্লাস নেওয়ার জন্য নিয়োগের কথা থাকলেও, তাঁকে নিয়োগ করা হয় একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষক হিসাবে৷ এই নিয়োগের পিছনে প্রশাসন বা শীর্ষ মহলের ইন্ধন রয়েছে অভিযোগ করতে শোনা যায় পড়ুয়াদের৷ জানা গেছে, এই রহস্যের কিনারা করতেই ওই শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ৷ তাঁকে জেরা করেই ঘটনার কারন উদ্ধার করতে চাইছেন তদন্তকারীরা৷ শিক্ষক মহম্মদ সানাউল্লাহকে জেরা করলেই একাধিক মিসিং লিঙ্কের সমাধান সূত্র পাওয়া যাবে বলে অনুমান পুলিশের৷

অন্য দিকে আজ ইসলামপুরে দারিভিটে পুলিশের গুলিতে নিহত দুই ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণের পরিবারের সাথে কথা বলতে উপস্থিত হন পশ্চিমবঙ্গ সামাজিক ন্যায় মঞ্চের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক অলকেশ দাস ও সহ: সম্পাদক দেবেশ দাস, তাপস সরকার ও অন্যান্যরা। পরিবারের সাথে তারাও উচ্চ পর্যায়ে তদন্তও দোষীদের কঠর থেকে কঠর শাস্তির দাবি জানান।

10