২৩/০৯/১৮,ওয়েবডেস্ক, স্বপন পালঃরবিবার ইসলামপুরের দাঁড়িভিটে পুলিশের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক মন্তব্য করার অভিযোগে উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

অভিযোগ এই যে, শঙ্কর বাবু বলেন, পুলিশ গুলি করে দুটি তরতাজা প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। এই এলাকায় আতঙ্কের বাতাবরণ তৈরি করেছে। দুটি প্রাণ কেড়ে নেওয়ার পরেও এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি। উলটো দিকে যাঁরা বিজেপি করছে ওখানে তাঁদেরকে রাতের বেলা ধরছে। পাশাপাশি রাতের বেলা বাড়িতে গিয়ে মহিলাদের সাথে অশালীন আচরণ করছে। ভয়ে মহিলারা চা বাগানে রাতে লুকিয়ে থাকছে। রক্ষক ভক্ষক হলে কাউকে না কাউকে আওয়াজ তুলতে হবে। তাই আমি বলে দিয়ে এসেছি, পুলিশ যদি রাতের বেলা ঢোকে, মহিলাদের শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে, পুলিশ আইনি না মানলে আত্মরক্ষার স্বার্থে মহিলারা আইন হাতে তুলে নেবেন। বাঁশ, বটি যা থাকবে পুলিশকে কাউন্টার করবেন।
তিনি বলেন,
সাধারণ মানুষকে বলে এসেছি, পুলিশকে সবরকম ভাবে অসহযোগিতা করবেন। পুলিশ বয়কটের ডাক দিয়ে এসেছি বলে মন্তব্য করেন শঙ্কর বাবু। ৫২ মাস জেল খাটতে হলেও উত্তর দিনাজপুরে পুলিশের গুণ্ডামি চলতে দেবোনা বলে হুঁশিয়ারি দেন এদিন বিজেপির জেলা সভাপতি।
তৃণমূলের জেলা সভাপতি অমল আচার্য বলেন, এই ধরনের মন্তব্যের নিন্দা করি। এই ধরনের উস্কানিমূলক কথা বলে অশান্তির পরিবেশ বাড়বে বলে তিনি জানান। এ প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিম বলেন, স্কুল শিক্ষাকে কেন্দ্র করে ইসলামপুর সহ গোটা উত্তর দিনাজপুরকে অশান্ত করার প্রতিযোগিতায় নেমেছে তৃণমূল ও বিজেপি। সারা দেশে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষায় স্বাধিকারকে নষ্ট করছে মোদী সরকার আর রাজ্যে স্কুল কলেজ শিক্ষায় স্বাধিকার ভঙ্গ করছি দিদি সরকার। মোদীভাই দিদিভাই মিলে শিক্ষাঙ্গনকে কলুষিত করছে। আর এরই পরিণতি গুলি,খুন, গ্রেপ্তার হানাহানি।

13