ওয়েব ডেস্কঃ,১৭/৯/২০১৮:মেডিসিন বিভাগেই নয়, রেডিওলজি, অ্যানাসথেসিস্ট, সার্জারি সহ প্রায় সব বিভাগেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসক নেই । সম্প্রতি জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালের এক চিকিৎসক চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। অন্য একজন বদলি হয়ে গিয়েছেন। সাধারণ এম বি বি এস চিকিৎসকদের দিয়েই সামলানো হচ্ছে মেডিসিন বিভাগ। আউটডোর মেডিসিন বিভাগও চলছে সপ্তাহে মাত্র দুই দিন। ফলে চিকিৎসক সংকটে ভুগছেন জলপাইগুড়ির মানুষ

জলপাইগুড়ি জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাক্তার জগন্নাথ সরকার বলেন, ‘জেলায় প্রয়োজনীয় চিকিৎসকের অভাব আছে ঠিকই। সমাধানের চেষ্টা করছি।’ জেলা সদর হাসপাতালের সুপার ডাঃ গয়ারাম নস্কর অবশ্য সরাসরি চিকিৎসা ব্যবস্থার বর্তমান এই পরিস্থিতির কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। সুপার বলেন, ‘চিকিৎসক নেই। অনেক আবেদন নিবেদন করার পর আগস্ট মাসে দুই তিনজন চিকিৎসক স্বাস্থ্যদপ্তর থেকে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু তাঁরাও বদলি হয়ে গেছেন।
জলপাইগুড়ির স্বাস্থ্য পরিষেবার বেহাল দশা। সরকারি ও বেসরকারি উভয় ক্ষেত্রেই স্বাস্থ্য পরিষেবার মান তলানিতে এসে ঠেকেছে। সরকারি উদ্যোগে জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালের স্বাস্থ্য পরিষেবা তো এখন প্রায় নেই বললেই চলে। শহরের প্রায় শেষ প্রান্তে সাদা নীল ঝাঁ চকচকে দশতলা ভবন গড়ে উঠেছে। নামেই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল।

33