ওয়েব ডেস্কঃ,৬/৯/২০১৮:উত্তর প্রদেশের বেরিলিতে কেবল সংস্থার কাজে গিয়ে প্রাণ হারানো এই জেলার ছয় পরিযায়ী ঠিকা শ্রমিকের পরিবার হাতে পেলেন ৫১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ।ঐ ঠিকা শ্রমিকদের মৃত্যুর পরই সংসদের কাজে দিল্লিতে থাকা সাংসদ মহঃ সেলিমের সহযোগিতায় মৃতদেহ অতি দ্রুত রায়গঞ্জে নিয়ে আসা হয়। এরপরই সাংসদ উত্তর প্রদেশের সরকারের লেবার কমিশনারকে মৃত শ্রমিকদের পরিবারকে ক্ষতিপূরন দেবার জন্য চাপ দিতে শুরু করে। এই নিয়ে উত্তর প্রদেশ লেবার কোর্টে মামলা হয়। মামলার শুনানিতে কেবল সংস্থাকে ক্ষতিপূরন বাবদ ৫১লক্ষ ৮ হাজার টাকা দেওয়ার নির্দেশ দেয়। ঐ সংস্থা ডিমান্ড ড্রাফট মাধ্যমে কের্টে টাকা জমা দিয়ে দিয়েছিল।

আজ বেরিলিতে ঐ ক্ষতিপূরণের চেক হাতে তুলে দেওয়া হল মৃতের নিকটাত্মীয়দের।
মৃত শ্রমিক নাজিমুদ্দীন, নাজিমুল হক (গ্রাম তেঘড়া), মহঃ হাসান আলি,
নাজিমুল হক (গ্রাম পাজোল) ও কাইসোর আলির স্ত্রীয়েরা এবং
মহিরুল হকের পিতা ক্ষতিপূরণ বাবদ পেলেন যথাক্রমে ৮ লাখ ৮৩ হাজার, ৮ লাখ ৭৯ হাজার, ৮ লাখ ৫৪হাজার ২৮০, ৮ লাখ১৫ হাজার, ৮ লাখ ৭৩ হাজার ও ৮ লাখ ৬৩ হাজার টাকা। শ্রমিকদের বয়স ও বেতনের ওপর ভিত্তি করে এই ক্ষতিপূরণ ধার্য্য করা হয় বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, অসংগঠিত পরিযায়ী শ্রমিকদের ক্ষেত্রে এটি আজ অবধি সর্বোচ্চ ক্ষতিপূরণ।
এই প্রসঙ্গ সাংসদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে উনি বলেন, “খুব ভালো লাগছে, ওঁদের প্রাপ্য ওঁরা পেয়েছেন। ওঁদের সাহায্যে আসতে পেরে আমি খুশি।”

26