পিভি সিন্ধুর ইতিহাস। অলিম্পিকের পর এবার এশিয়ান গেমসে প্রথম ভারতীয় হিসেবে সিঙ্গলসের ফাইনালে খেলবেন সিন্ধু। আজ প্রথম সেমিফাইনালে সাইনা নেহওয়াল হেরে গেলেও, শেষ চারের ম্যাচে জিতে ফাইনালে উঠলেন সিন্ধু। জাপানের যে ইয়ামাগুচিকে হারিয়ে ক দিন আগে বিশ্ব ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপে ফাইনালে উঠেছিলেন সিন্ধু, তাঁকে হারিয়েই এশিয়াডে রুপো জয় নিশ্চিত করলেন। সোমবার সেমিফাইনালে সিন্ধু জিতলেন 21-17, 15-21, 21-10 ইয়ামাগুচির বিরুদ্ধে। এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে ব্যাডমিন্টনের সিঙ্গলসের ফাইনালে এর আগে কোনও ভারতীয় উঠতে পারেননি। 1982 এশিয়ান গেমসে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন সৈয়দ মোদী। আর আজ সেমিতে হেরে ব্রোঞ্জ জেতেন সাইনা। ক দিন আগে নানজিংয়ে স্ট্রেট গেমে ইয়ামগুচিকে হারিয়েছিলেন সিন্ধু। তবে আজ একটা গেম খোয়ালেও নির্ণায়ক গেমে সহজেই জেতেন সিন্ধু। ফাইনালে সিন্ধুর সামনে দুনিয়ার এক নম্বর খেলোয়াড় তাই জু ইয়ং। চাইনিজ তাইপের তাইয়ের বিরুদ্ধে ফাইনালের গাঁট ছাড়ানোর বড় চ্যালেঞ্জ সিন্ধু-র। অলিম্পিক, বিশ্ব মিট, কমনওয়েলথ গেমস- সবেতেই ফাইনালে হারের রেকর্ডটা এবার বদলানোর সুযোগ সিন্ধুর সামনে। সাইনাকে 21-17, 21-14 হারিয়ে ফাইনালে ওঠেন তাই জু ইয়ং।

সোমবার প্রথম সেমিফাইনালে সাইনা হারেন বিশ্বের এক নম্বর চাইনিজ তাইপের তাই জু ইয়ংয়ের কাছে। সাইনা হারেন 17-21, 14-21। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে জাপানের ইয়ামোগিচের বিরুদ্ধে নামছেন পিভি সিন্ধু। সেমিফাইনালে ওঠায় গতকালই পদক নিশ্চিত করেছিলেন সাইনা নেহওয়াল, পিভি সিন্ধু। আজ সেমিতে হারায় ব্রোঞ্জ পদক পেলেন সাইনা। এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে মহিলাদের ব্যাডমিন্টন সিঙ্গলসে এটাই ভারতের প্রথম পদক। এদিন প্রথম গেমে একটা সময় তুল্যমূল্য লড়াই করছিলেন সাইনা। কিন্তু দুনিয়ার এক নম্বর তাই এরপর নিজের খেলার তুঙ্গে উঠে প্রথম গেমে জেতেন 17-21। 19 মিনিটেই প্রথম গেম শেষ হয়। দ্বিতীয় গেমে 13-12 লিড ছিল সাইনার। কিন্তু তারপরই ছন্দপতন। সেখান থেকে 9টা পয়েন্ট জেতেন তাই, সেখানে সাইনা জেতেন মাত্র একটা পয়েন্ট। একের পর এক পয়েন্ট তুলে নিয়ে সাইনাকে হারান চাইনিজ তাইপের সেরা খেলোয়াড়। প্রসঙ্গত, এশিয়াডে ব্যাডমিন্টনে ভারতের একমাত্র পদকটা এর আগেে জিতেছিলেন সৈয়দ মোদী। 1982 দিল্লি এশিয়ান গেমসে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন প্রয়াত সৈয়দ মোদী। গতকাল কোয়ার্টার ফাইনালে সাইনা 21-18, 21-16 হারান তাইল্যান্ডের রাতচনক ইন্তাননকে। তখনই তাঁর অন্তত ব্রোঞ্জ পদক নিশ্চিত হয়েছিল।

8